নকশার আয়োজনে মডেলদের সাজিয়ে দিয়েছেন কানিজ আলমাস খান মীম পরেছেন প্রবর্তনা র শাড়ি(বাঁয়ে) এবং সারি� পয়লা বৈশাখে কেমন হবে সাজটা? লাল-সাদা শাড়ি, নাকি অন্য কোনো রং? পাড়ওয়ালা সুতি শাড়ি, নাকি ঢাকাই জামদানি? লাল টিপ, কাজল তো অনেক দিন ধরেই চলছে। বৈশাখী সাজে বৈচিত্র্য আনা যায় কীভাবে?
বাঙালির এই উৎসবের সাজ নিয়ে কত না আয়োজন! তবে সবচেয়ে বড় কথা সেই বৈচিত্র্য আনা নিয়েই। লাল-সাদা রঙের মধ্যেই আসতে পারে ভিন্নতা। চোখে কাজলের সঙ্গে আইশ্যাডোর ব্যবহার বদলে দিতে পারে সাজের ধরনটা। চুলের সাজ নিয়েও কত চিন্তা! এই দিনে অনেক ঘুরতে হয়, তাই চুলে ভারী খোঁপা করাটা তেমন আরামদায়ক নয়। ব্লো ডাই করেই নানা ঢংয়ে চুল সাজাতে পারেন। আর স্মোকি সাজের চুল তো আছেই। শাড়িটা যদি লাল-সাদাই পরেন, গয়না হতে পারে ভিন্নধর্মী।
উৎসবের আমেজের সঙ্গে একদম মানানসই, তবে অনেকের ভিড়েও আলাদা—এমন সাজের ধরন নিয়েই নকশার এই আয়োজন।

এক প্যাঁচের শাড়িতে
চওড়া পাড়ের শাড়িটা এক প্যাঁচে পরা হয়েছে, যাতে বাহারি আঁচলটা চোখে পড়ে। সাজের ধরনটা কিন্তু একদম আধুনিক। শাড়ির কন্ট্রাস্ট রঙে গাঢ় আইশ্যাডো। চুল রোলার দিয়ে ঢেউ খেলানো। সঙ্গে রংচঙে বড় পুঁতির গয়না।

যেমন খুশি তেমন সাজো
লাল-সাদা রংটা বছর কয়েক ধরেই পরা হচ্ছে। এবার একটু বদল হলে কেমন হয়? চুলের সাজটায় আছে চিরায়ত আবেদন। খাটো চুল হলে পেছনটা বেঁধে রাখতে পারেন। বড় অ্যান্টিক ধাঁচের গয়নায় সাজটা পূর্ণতা পাবে। চোখের সাজটাও বেশ ভারী।

শুভ্র স্নিগ্ধতা
সাদা শাড়িতে উৎসবের আমেজ যোগ করেছে বাহারি গয়না। চোখের কাজল আর লাল টিপে বাঙালি মেয়ের সাজ সম্পূর্ণ। এমন সাজে চুলটা বাঁধতে পারেন একটু অন্য ঢংয়ে। সামনের অংশ কয়েক ভাগে পেঁচিয়ে নিয়ে পেছনে ক্লিপ দিয়ে আটকে নিন। পেছনটা আয়রন করে খোলা রাখতে পারেন।

ব্লাউজ বাহার
শাড়িটা রংচয়ে, তবে ব্লাউজটা তার চেয়ে বাহারি। ফুলহাতা কুর্তা আদলের ব্লাউজে ব্যবহূত হয়েছে লেস। সঙ্গে রুপার গয়না। কপালে লাল-সাদা টিপ কি পরতেই হবে? নীল বা সবুজ রংও মন্দ নয়। চুলের সাজটাও খুব সহজ। ব্লো ডাই করে নিচের অংশটা একটু ঢেউ খেলিয়ে নিন।

নিরাভরণ
গয়নার বাহুল্য নেই। হাতে একটা মোটা বালাই যথেষ্ট। তাতে অবশ্য সাজের বাহার কমেনি। হাফসিল্ক শাড়িতে ব্লকপ্রিন্ট করা। এখানেও ব্লো ডাই করে ছেড়ে রাখা হয়েছে চুল। এমন সাজের সঙ্গে হাতখোঁপা করে নিলেও ভালো দেখাবে।

ফুলের সাজে
ফুল ছাড়া অনেকের বৈশাখী সাজ সম্পূর্ণ হয় না। শুধু পোশাকের রঙের সঙ্গে মিলিয়ে নয়, যেকোনো রঙের ফুল দিয়েই সেজে উঠতে পারেন। তবে চুলে ফুল গোঁজা হলে বাকি গয়নাগুলো ফুলের তৈরি না হলেই ভালো। এতে সব মিলে জবরজং ভাব চলে আসবে।
নকশার আয়োজনে মডেলদের সাজিয়ে দিয়েছেন কানিজ আলমাস খান মীম পরেছেন প্রবর্তনা র শাড়ি(বাঁয়ে) এবং সারিকা পরেছেন রঙ-এর (ডানে) শাড়ি

রুহিনা তাসকিন
সূত্র: দৈনিক প্রথম আলো, এপ্রিল ০৫, ২০১২